মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

পূর্ববর্তী মামলার রায়

          ১। বর্তমান বছরে মোট দায়েরীয় মামলার সংখ্যা 36 টি।

          ২। গ্রাম আদালতে সাপ্তাহিক ধার্য দিবস প্রতি বৃহস্পতি বার

          ৩। বর্তমানের চলমান মামলা (ডেইট রেজিষ্ট্রার অনুসারে) 9  টি।

পূর্ববর্তী মামলার রায়

মামলা নং       ১১/২০১৭                                     মামলা দায়েরের তারিখ            ১৮/০৩/২০১৭ ইং

 

আদেশ নং       ঃ ০৬                                        আদেশের তারিখ ঃ    ২৫/০৪/২০১৭ ইং

 

 

বাদী     ১।  মোঃ নাজিম উদ্দিন পিতা মৃত আব্দুল ওহিদ  গ্রাম  জালিয়াল উপজেলা সদর, জেলা নোয়াখালী।

 

বিবাদী ১।  আব্দুল হক পিতা মৃত আব্দুল গফুর গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

২। সামছুল হক পিতা মৃত আব্দুল গফুর গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৩। মোঃ সেলিম পিতা মৃত মোঃ মানিক গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৪। মোঃ খলিল পিতা মৃত সৈয়দ আহাম্মদ, গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৫। মোঃ আব্দুল হাই পিতা মৃত আতর আলী, গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

পÿভূক্ত বিবাদী

৬। মোঃ ইউছুপ পিতা হাজী শাহে আলম,  গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৭। মোঃ আজগর পিতা মৃত মোঃ মোসত্মফা, গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৮। আজিজ উলস্নাহ পিতা মৃত আব্দুর রহমান, গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

৯। লিপি আক্তার স্বামী মৃত আবুল খায়ের, গ্রাম চর হাসান, সুবর্ণচর উপজেলা, নোয়াখালী।

 

তফসিল নালিশি বিষয়ঃ  চর হাসান  মৌজার ২৭২ নং খতিয়ানের ৭১০, ৭১২, ৭১৫, ৭১৯, ৭২০, ৭২১, ১০৭৭ দাগে ৪৪.৬১ একর  ভূমির অন্দরে ১.৪০ একর  বাদীর নালিশী হয়।

 

     আদেশ

 

বাদীঃ  নাজিম উদ্দিন                                                                বিবাদীঃ   আব্দুল হক গং          

ক্রমিক

তারিখ

আদেশের সারমর্ম

০৬

২৫/০৪/১৭

        পূর্বনির্ধারিত তারিখ থাকায় নথি উপস্থাপিত হল। অদ্য বাদি এবং বিবাদীপÿ আদালতে হাজির আছেন।   উভয়পক্ষের মনোনিত সালিশদারগন আদালতে  উপস্থিত আছেন। স্থানীয় মেম্বার ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ আদালতে উপস্থিত আছেন। সকলের উপস্থিতিতে বাদী বিবাদীর জবানবন্দি শুনিলাম, কাগজপত্র দেখিলাম, স্বাক্ষ্য প্রমান গ্রহন করিলাম।

 

       বাদীপÿ বলেন যে,  নালিশী ভুমি বাদীপÿ ওয়ারিশ সূত্রে মালিক হন। বিবাদীপÿও খতিয়ানের প্রজা এবং খরিদ সুত্রে ভূমির মালিক হন। বিবাদীপÿ বাদীর মালিকীয় ভূমির অভ্যমত্মরে অনুপ্রবেশ করিয়া ভূমি চাষ দেয়ায় শামিত্মপূর্ণ দখল নিশ্চিতের জন্য বাদী মামলা আনয়ন করেন বলিয়া উলেস্নখ করেন।

 

    ৪ নং বিবাদী নিজকে খতিয়ানের প্রজার ওয়ারিশ  এবং খরিদ সুত্রে ভূমির মালিক বলিয়া দাবী করেন। অনুপ্রবেশের বিষয় বিবাদী অস্বীকার করেন। নিজ মলিকীয় ভূমিই চাষ করিয়াছেন বলিয়া তিনি প্রকাশ করেন।

 

         আলোচনা ও সিদ্ধামত্ম

 

        বাদী বিবাদীর  জবানবন্দি,  কাগজপত্র  পর্যালোচনায় দেখা যায় যে,  বাদী এবং বিবাদীপÿ চর হাসান মৌজার ২৭২ নং খতিয়ানের বিভিন্ন দাগে নির্দিষ্ট হিষ্যায় ভূমির মালিক হন। বাদীপÿ (খতিয়ানের প্রজা আব্দুল অহিদ এর ওয়ারিশ হিসাবে) ১.৪০  একর ভূমির মালিক হন। বিবাদীপÿ খতিয়ানের প্রজা হিসাবে এবং দলিল নং ৬৬৭৭  তারিখ ০৮/০৩/১৯৮৫, দলিল নং ৬৬২৩ তারিখ ২৮/০৩/১৯৮৫, দলিল নং ২২২২ তারিখ ১৩/০১/১৯৭৫, দলিল নং ২৯১৪ তারিখ ১৭/০১/১৯৭৫ মূলে একুনে ৭.১৮ একর ভূমি দাবী করেন।

 

       জটিলতা ও বিতর্ক 

  

        উলেস্নখিত দলিল নং ২৯১৪ তারিখ ১৭/০১/১৯৭৫ মূলে ৪ নং বিবাদীর খরিদ সংক্রামত্ম বিষয়ে বিতর্ক বিদ্যমান আছে। অত্র দলিল দাতা ( খতিয়ানের প্রজা আলি মিয়া ) অত্র দলিল দেয়ার আগেই দলিল নং ৬৬৭৪ তারিখ ১৩/০৪/১৯৭৪ মাধ্যমে অত্র সম্পত্তি জনৈক নেয়াজের রহমানের নিকট বিক্রি করেন। যাহা বর্তমানে জের খরিদ্দার হিসাবে জনৈক সামছল হক গং দখলে আছেন। ( দলিল নং  ২৯১৪ তারিখ ১৭/০১/১৯৭৫ এবং দলিল নং ৬৬৭৪ তারিখ ১৩/০৪/১৯৭৪ এর জাল জালিয়াতি নিয়াও বিতর্ক আছে, যাহা উচ্চ আদালতের এখতিয়ার) বর্ণিত অবস্থায় একই ভূমি দোগর বিক্রি হওয়ায় জটিলতা সৃষ্টি হয়। পূর্বে দলিল গ্রহিতা জমি দখলে আছেন।  বর্তমান অবস্থায় ৪ নং বিবাদী  দলিল নং ২৯১৪ তারিখ ১৭/০১/১৯৭৫ মূলে খরিদীয় সম্পত্তি পূরণ নিতে চাওয়ায় অনুপ্রবেশের অবতারনা হয়।

 

     সিদ্ধামত্ম

 

   বাদী বিবাদীর কাগজপত্র, স্থানীয় আমিনের পরিমাপ প্রতিবেদন, স্থানীয় সাÿÿপ্রমানে ৪ নং বিবাদী কর্তৃক বাদীর দখলীয় ভূমিতে অনুপ্রবেশের বিষয় প্রমাণিত হয়। বাদীপÿ তার মালিকীয় ১.৪০ একর ভূমিতে শামিত্মপূর্ণ দখল পাবেন মর্মে গ্রাম আদালত মতামত প্রদান সহ সিদ্ধামত্ম পোষন করে। 

 

     আদেশ হইল যে,

 

১।  বাদীপÿ চর হাসান মৌজার ২৭২ নং খতিয়ানে  ৭১০, ৭১২, ৭১৫, ৭১৯, ৭২০, ৭২১, ১০৭৭ দাগের অন্দরে ১.৪০ একর ভূমির  শামিত্মপূর্ণ দখল পাবেন।

২।  ৪ নং বিবাদী কোন অবস্থাতেই বাদীর শামিত্মপূর্ণ দখলে হসত্মÿÿপ করবেন না।

 

                                                                                                                                                                                                    

                                                                                   চেয়ারম্যান

                                                                                  গ্রাম আদালত

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter